Help line: 01790-181018

HB020. প্রাকৃতিক গাইনী ডাক্তার: উলটকম্বল (100)/Devil's Cotton

উলটকম্বল-ভেষজ গুনে অনন্য ও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই পরীক্ষিত এক উদ্ভিদ যার প্রধান ব্যবহার স্ত্রীরোগে । বিশেষ করে নারী প্রজনন স্বাস্থ্যে পুরো গাছই ব্যবহারযোগ্য । এ থেকে তৈরী ওষুধের কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই । মানারত আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসী বিভাগের একদল নারী গবেষক প্রাচীন কাল থেকেই ইউনানী-আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে উলটকম্বলের ব্যাপক ব্যবহার তুলে ধরে ইহাকে ‘জরায়ু টনিক’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন । ইউনানি তো বটেই; তবে আয়ূর্বেদিক শাস্ত্রে এর ব্যবহার আরও বেশী । পুরুষদের সিংহভাগ রোগের আবাসস্থল বুক থেকে শুরু হয়ে ওপরের দিকে আর স্ত্রীরোগের আনাগোনা পেট থেকে নীচের দিকে । স্ত্রীরোগ তথা তদীয় অঙ্গসমুহে প্রায় ২০ প্রকারে উলটকম্বল ব্যবহৃত হয় আর এ জন্যই একে ‘প্রাকৃতিক গাইনী ডাক্তার’ বলা হয় । পারিবারিক বাগান বা ছাঁদ বাগানের ভেষজ অংশে জবা জাতীয় Malvaceae পরিবারের বড় বোন; এই গাছটিকে রাখাই দরকার ।
SKU: HB020
€43.00
Ship to
*
*
Shipping Method
Name
Estimated Delivery
Price
No shipping options




আকর্ষণীয় মেরুন ফুল নীচ দিকে ঝুলে থাকলেও পরে ফল থাকে উপরের দিকে খাঁড়া-এ জন্যই ইহা উলট(উল্টো) আর পরিপক্ক ফল ফেঁটে ভিতরের কম্বলের ন্যায় লোমশ অংশ পরিস্ফুটিত হয় আর তাই নাম উলটকম্বল । বহুবর্ষজীবী এই Devil’s cotton (উলটকম্বল-Abroma augusta)গাছের ছাঁলে রেশমের মত আঁশ থাকে যদ্বারা বেশী বাড়াবাড়িতে Devil কর্তৃক শয়তানি মুলক চুলকানির উদ্রেক হতে পারে । ৮-১০ ফুট লম্বা গাছ যার গোড়ার পাতা হৃদপিন্ডাকার । ইহা কিছুটা ছায়াতেও খুব সহজেই জন্মে । বাকল থেকে দড়ি,কাপড়, মাছ ধরার জাল ও ইহা বেতের বিকল্প হিসাবেও ব্যবহৃত হয় । উলটকম্বল মূল ভূমিক্ষয় রোধ করে ।

এবার উলটকম্বলের প্রাকৃতিক গাইনী ডাক্তারী নিম্নে তুলে ধরা হলো-

(১) অনিয়মিত ঋতুস্রাব:

মূলের ছালচুর্ন ১-৩ গ্রাম ও ১০০-৩০০ মিলিগ্রাম গোল মরিচের গুড়া মিশিয়ে ঋতুস্রাব শুরুর ৪-৫ দিন আগে থেকে প্রতিদিন ১ বার সেব্য ।

(২) ব্যথাযুক্ত-ঋতুস্রাব:

২ গ্রাম মূলের ছালচুর্ন সাথে ২০০ মিলিগ্রাম গোল মরিচের গুড়াসহ সমস্যাযুক্ত দিনগুলোতে নিয়মিত ১ বার সেবন করুন ।

(৩) বাধক বা ঋতুস্রাবে কোমর ব্যথা:

মূল ছেঁচে রস করে ৫ টি গোল মরিচ সহ পানিতে মিশিয়ে ৩ সপ্তাহ সকাল-বিকাল খেতে হয় ।

(৪) শ্বেতস্রাব:

মূলের ছালচুর্ন ৩ গ্রাম সকাল-সন্ধায় খালি পেটে পানিসহ সেব্য ।

(৫) স্বল্প স্রাব:

পত্রবৃন্ত কুঁচি কুঁচি করে কেটে ১ লিটার পানিতে ১ রাত ভিজিয়ে সকালে খালি পেটে আখের গুড় সহ খেলে উপকার পাওয়া যায় অথবা ৫ গ্রাম শিকড় ৪০০ মিলি পানিতে সিদ্ধ করে ১০০ মিলিতে কমিয়ে ছেঁকে নিয়মিত দিনে দু’বার ।

(৬) অধিক ঋতুস্রাব:

৫ মিলি করে পাতার রস দিনে দ’বার পান করুন । 

(৭) সহবাসে ব্যথা:

কিছু কাঁচা-ছাঁল বেটে ১০ গ্রাম পানিতে মিশিয়ে ছেঁকে চিনিসহ দিনে ২ বার সেব্য ।

(৮) যোনিপ্রদাহ:

শুকনো ছাল ১০ গ্রাম+১০ গ্রাম আশোক ছাঁল+২ গ্রাম মেহেদি পাতা আধা চূর্ণ করে প্রতিবার ২৫০ মিলি পানিতে জ্বাল দিয়ে পানির পরিমাণ অর্ধেক হলে ছেঁকে সকাল ও বিকেলে ১ মাস সেব্য ।

(৯) প্রস্রাবের জ্বালাপোড়া:

ক’টি পত্রবৃন্ত পিষে ২৫০ মিলি পানি ও হালকা চিনিসহ দিনে দু’বার খালি পেটে সেব্য ।

(১০) জরায়ুর স্থানচ্যুতি:

তাজা মূলের ছাঁল ৫ গ্রাম পিষে পানিতে মিশিয়ে সকাল-সন্ধায় চিনিসহ সেব্য

(১১) জরায়ুর চুলকানি:

মূলের ছাল-চুর্ন আখের গুড় ও পানিসহ সকাল-বিকাল খেতে হয় ।

(১২) গর্ভপাত রোধ:

পাতার রস ১০-২০ মিলি অথবা মূলের ছাঁল-চুর্ণ ৩-৬ গ্রাম নিয়মিত সেব্য ।

(১৩) ব্যাখ্যাতীত কারনে বন্ধ্যাত্ব:

মহিলাদের গর্ভধারণের সকল স্বাভাবিক রিপোর্ট থাকা সত্ত্বেও অজানা কারণে যারা বন্ধ্যাত্বে ভুগছেন উলটকম্বলের পঞ্চাঙ্গ (মূল+বাকল+কঁচিডাঁটা+পত্রবৃন্ত+পাতা) ছায়ায় শুকিয়ে ৫ গ্রাম গুঁড়ো ও ১ গ্রাম গোল মরিচ মিশিয়ে পানিতে সিদ্ধ করে তৈরিকৃত জেলি টনিক নিয়মিত সেবন গর্ভধারণের সমুহ সম্ভাবনাকে উন্নত করে ।

(১৪) শরীর ব্যথা:

দক্ষিণ থাইল্যান্ডের মুসলিম মহিলাগন উলটকম্বল বীজ তেল ব্যথা নিরাময়ে ব্যবহার করে থাকেন ।

(১৫) মহিলাদের কোমর ও জয়েন্টে বাত-ব্যথা:

৩-৪ টি তাজা পত্রবৃন্ত পিষে ২০০ মিলি পানি ও সামান্য চিনি সহ ১ কাপ দুধ সকাল-সন্ধ্যায় খালি পেটে সেব্য ।

(১৬) রজ:নিবৃত্তি:

প্রতিবার ৬০ গ্রাম মূলের ছাল ২৫০ মিলি পানিতে জ্বাল করে অর্ধেকে নামিয়ে ছেঁকে সকাল-বিকাল সেব্য ।

(১৭) মহিলাদের বুক ধড়ফড় করা:

কাঁচা-ছাঁল বাটা ১০ গ্রাম পানিতে মিশিয়ে ছেঁকে সাথে অর্জুন-ছাঁলচুর্ন ৫ গ্রাম অল্প চিনিসহ শরবত করে দিনে ২ বার সেবন করুন

(১৮) মহিলাদের বার্ধক্যজনিত রোগ:

২০০ মিলিগ্রাম মূল চূর্ণের সাথে গোল মরিচের গুঁড়া মিশিয়ে পানিসহ দিনে দুইবার সেব্য ।

(১৯) শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়া:

পুরুষের তুলনায় নারীর শরীর তুলনামুলক নাজুক হেতু কিছু ওলটকম্বল পাতা ১০-১৫ মিনিট পানিতে সিদ্ধ করে সেই পানি খালি পেটে সকালে ও রাত্রে ঘুমানোর আগে নিয়মিত পান করলে নারী-শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকগুনে বেড়ে যাবে । 

(২০) ঘন কালো উজ্জ্বল চুল:

২ টেবিল চামচ ক্যাস্টর অয়েল এর সাথে ২ চা-চামচ ওলটকম্বল গাছের পাতার রস মিশ্রিত করে হালকা গরম করে সপ্তাহে ৩ বার ব্যবহার করলে ২০-৩০ দিনের মধ্যে আপনার চুল ঘন কালো এবং উজ্জ্বল হবে ।

(২১) নারীর পাশাপাশি পুরুষদের শুক্রক্ষয় ও শুক্রস্বল্পতা:

৩-৪টি তাজা পত্রবৃন্ত পিষে ২০০ মিলি পানিতে ও সামান্য চিনি সহ ১ কাপ দুধ সকাল-সন্ধ্যায় খালি পেটে সেব্য ।

(২২) গবাদিপশুর রোগ-বালাই:

উলটকম্বল মূলের ছাল থেকে এক ধরনের আঠা জাতীয় রস বের হয় যা গবাদিপশুর পাতলা পায়খানা, বিলম্ব প্রজনন ও হাঁস-মুরগীর বিভিন্ন চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয় 

Write Your Own Review

Only registered users can write reviews