Help line: 01790-181018

Sorry - this product is no longer available

HB570. মুসলিম পার্পল পেরিলা (200)/Muslim Purple Perilla

মুসলিম পার্পল পেরিলা ( চীনা তুলসী )-পুদিনা পরিবারের ( Lamiaceae ) অন্তর্গত একটি মশলাদার বর্ষজীবী ভেষজ উদ্ভিদ । ছোট সামান্য পাতা অথচ অত্যন্ত কড়া সতেজ সুবাসিত প্যারালডিহাইডের ( Paraldehyde ) গন্ধযুক্ত আর এ থেকেই নাম-পেরিলা ( Perilla ) । হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী চিরাচরিত চীনা ৫০ টি মৌলিক হার্বাল ঔষধের মধ্যে অন্যতম একটি । চীন সরকার উইঘুর মুসলিমদের প্রতি বৈরী কিন্তু চীনা উপভাষী ও জাতিগত হুই মুসলিমদের প্রতি পূর্ব থেকেই সদয় । এই পার্পল পেরিলার সহিত হুই মুসলিমদের অত্যন্ত সখ্যতা হেতু চীনা সংস্কৃতিতে ইহাকে "মুসলিম পার্পল পেরিলা" বলা হয় । প্রাচীন চীনের পার্বত্য অঞ্চল থেকে প্রবর্তিত এই পেরিলা এখন বিশ্বব্যাপী পাওয়া যায় । জাপানের টোহোকু অঞ্চলে এই পেরিলাকে ‘জুনেন ( ১০ দশ বছর+ )’ এই বিশ্বাসে বলা হয় যে পারমানবিক গোলাপী পেরিলা টনিক বা চা গ্রহনে একজন ব্যক্তির মোট আয়ুষ্কালে দশ বছর যোগ হয় । নামে চীনা তুলসী কাজে জাপান জয়ী ।
SKU: HB570
€43.00
Ship to
*
*
Shipping Method
Name
Estimated Delivery
Price
No shipping options




জাপানী হান রাজবংশের শেষ দিকে লুওয়াং শহরের এক যুবক অনেকগুলো কাঁকড়া খেয়ে বিষ ক্রিয়ায় মারা যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল । একজন ভেষজ চিকিৎসক তাকে এই পেরিলার বেগুণী পাতা জুস করে পান করিয়েছিল । যুবকটি সঙ্গে সঙ্গে সুস্থ হয়ে ওঠে আর সেই থেকে এই পার্পল (বেগুণী) পেরিলাকে জাপানী ভাষায় 'শিসো (Shiso-বাংলা অর্থে বেগুণী পুনরুদ্ধার)' বলা হয় ।

পারমানবিক গোলাপী পেরিলা টি টনিক(Atomic Pink Perilla Tea Tonic):

৫ কাপ পানিতে ফুটন্ত অবস্থায় মোটামুটি ১০০ গ্রাম গুচ্ছ পাতা যোগ করুন । তাপ বন্ধ করে ৩০ মিনিট ঢেকে রাখুন । পাতাগুলোকে চামচ দ্বারা ভালোভাবে চেপে চেপে স্বাদ বের করুন ও তারপর ছেঁকে নিন (ব্যবহৃত পাতাগুলোই আবার পেরিলা গাছের জন্য কম্পোস্ট সার) । পরিশেষে পারমানবিক রঙের জাদু (পরিবর্তিত pH মান) দেখতে যোগ করুন দু’চামচ লেবুর রস বা চুনের পাতলা পানি! ঐচ্ছিক চিনি বা মধু ও সমপরিমান পানি মিশিয়ে পান করুন-শীতকালে গরম এবং গরমকালে বরফ ঠান্ডা ।অন্যথায় বেশী করে চিনি দিয়ে ঘনীভূত রস ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন । পেরিলা পাতায় রয়েছে প্রাকৃতিক সংরক্ষণ গুণাবলী । চীন-জাপানে ইহা টি-ব্যাগ আকারে বিক্রি হয় ।  এতে কোনো ক্যাফেইন নেই তাই গর্ভাবস্থায় ও ছোট শিশুদের জন্যও নিরাপদ । দৈহিক ওজন ও মানসিক অবস্থা স্থিতিশীল থাকে । এই টি টনিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর; অ্যান্টিভাইরাল ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল তো বটেই । বিশেষ করে হাঁপানি ও হজম বিপর্যয় রোধে পেরিলা পাতার টনিক অতুলনীয় । পাতা এবং কান্ডের রঙ সবুজ থেকে লাল-বেগুণীতে রুপান্তর অ্যান্থোসায়ানিনের উপস্থিতি নির্দেশ করে । পাতায় বিদ্যমান রোম্যারিনিক অ্যাসিড অ্যালার্জির বিরুদ্ধে খুবই কার্যকর । এতে রয়েছে প্রচুর আয়রন, ক্যালসিয়াম এবং ক্যারোটিন (কুমড়ার তুলনায় ১০ গুন)।

পেরিলা একটি ভোজ্যতেল ফসল যার শতকরা ৬৫ ভাগই ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড যা বয়স্কদের হার্টের জন্য খুবই উপকারী আর বাচ্চাদের মেধা বাড়ায় । ভ্যানিলা আইসক্রিমের গোপন উপাদান এই পেরিলা তেল । 8 ইঞ্চি চারা ভেষজ সব্জী হিসেবে রান্না করে খাওয়া যেতে পারে । ভারত ও নেপালে পেরিলার বীজ ভাজি করে লবন-মরিচ-টমেটো দিয়ে একটি মুখরোচক চাটনি তৈরি করা হয় ।পার্পল পেরিলার পাতাগুলো খাবার রঙ করতে রিশেষত লাল আচার তৈরিতে ব্যবহৃত হয় ।পেইন্ট, বার্নিশ, ছাপার কালি ও কাপড়ের রঙ শুকানোর তেল হিসাবে ব্যবহৃত হয়েছে । বীজের তেল জ্বালানি হিসেবেও ব্যবহৃত হতে পারে । গবাদি পশু পেরিলা পাতা এড়িয়ে চলে কিন্তু খৈল (প্রাকৃতিক সার) ঠিকই খায় ।

বাংলাদেশে বহুল আলোচিত ‘সাউ পেরিলা’-একই প্রজাতির তবে জাত ভিন্ন । বৈজ্ঞানিক নাম Perilla frutescens var acuta-জাতটির পাতা মাংসের রক্ত-লাল রঙের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ বিধায় পুরাতন ইংরেজিতে ইহাকে Beefsteak Plant বলা হয় । পেরিলার ফুলে প্রচুর মৌমাছি বসে বিধায় এতে রয়েছে বাণিজ্যিক মধু চাষের সম্ভাবনা । যত্নহীন ভাবে বেড়ে ওঠা পেরিলার বীজ পরিপক্ব হলে ৮০ শতাংশ পাতা হলুদ হয়ে ঝরে যায় আর তখন গাছে পা রাখলে Rattle সাপের আওয়াজের ন্যায় শব্দ হয় । এই গাছ একবার লাগালে পেরিলা পরিবার পরিকল্পনাহীন ভাবে বাড়তে থাকে ।

Write Your Own Review

Only registered users can write reviews